কানাডার নির্বাচন এবং ইমিগ্রেশন ভাবনা

Fri, Sep 3, 2021 12:06 AM

কানাডার নির্বাচন এবং ইমিগ্রেশন ভাবনা

মাহমুদা নাসরিন : ফেডারেল ইলেক্শন একদম নাকের ডগায় - সেপ্টেম্বরের বিশ তারিখ। শুরু হয়ে গেছে সব রাজনৈতিক দলগুলোর প্রচার প্রচারণা, রাজনৈতিক ইশতেহারও ঘোষণা করেছে সব দলগুলো।

বিশ্ব মহামারীর এই সংকটময় মুহূর্তে কানাডার হঠাৎ নির্বাচনের পাশাপাশি আচমকা যুক্ত হয়েছে আফগান রেফিউজি সংকট। আফগানিস্তানে   তালিবান শাসকদের  প্রত্যাবর্তনের সাথে সাথে ট্রুডো সরকার ইতোমধ্যেই বিশ হাজার আফগান রেফুজিদের কানাডায় নিয়ে এসে তাদের পুনর্বাসনের ঘোষণা দিয়েছে।  আর তারই ধারাবাহিকতায় গত কয়েকদিনে ৩৭০০ আফগানদেরকে কানাডা বিমানযোগে  নিয়ে আসতে সক্ষম হয়েছে। জরুরী ভিত্তিতে আরো আফগান শরণার্থী নিয়ে আসার প্রক্রিয়া অব্যাহত আছে।

কানাডার এইরকম একটি গুরুত্বপূর্ণ সময়ে দেশটির ইমিগ্রেশন পলিসি ফেডারেল  নির্বাচনে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ  ভূমিকা পালন করছে।   কানাডা দিন দিন অভিবাসীদের উপর আরো বেশি নির্ভরশীল হয়ে পড়ছে।  পৃথিবীর দ্বিতীয় বৃহত্তম দেশটির জনসংখ্যা বৃদ্ধির হার খুবই কম, উপরন্তু বয়স্ক লোকের সংখ্যা অনেক বেশি।  ফলে, দেশের অর্থনীতিকে চাঙ্গা রাখতে অনেক বেশি কর্মক্ষম জনগোষ্ঠী দরকার হয়ে পড়েছে। বিশাল বয়স্ক জনগোষ্ঠীর জন্য সরকারকে স্বাস্থ্য খাতে অনেক অনেক খরচ  করতে হচ্ছে।  কারণ আপনারা জানেন কানাডার স্বাস্থ্য খাতের সম্পূর্ণ খরচ সরকার বহন করে।  আর সরকারের এই অর্থের যোগান হয় জনগণের দেয়া ট্যাক্স থেকে। করোনা মোকাবিলায় এবং দেশটির অধিকাংশ জনগোষ্ঠীকে ডাবল ভ্যাকসিনেটেড করার ব্যাপারে কানাডার সাফল্য বিশ্বব্যাপী প্রশংসিত হচ্ছে। বিশ্ব মহামারীর সময়ে কানাডার লং টার্ম কেয়ার হোম গুলোতে যে পরিমান প্রাণ হানি ঘটেছে  এবং সেখানে জনবলের যে কত অভাব তা আমাদেরকে চোখে আঙ্গুল দিয়ে দেখিয়ে দিয়েছে।  বিশ্ব মহামারীর সময়ে কানাডিয়ানদের স্বাভাবিক জীবনযাত্রা চালানোর জন্য কানাডায় জনবলের যে কি অপ্রতুলতা তা ভীষণ প্রকট ভাবে ধরা পড়েছে।  আর তাই কানাডা প্রতি বছর কমপক্ষে চার লক্ষ দশ হাজার নতুন ইমিগ্রান্ট আনার লক্ষ্যমাত্রা ধার্য্য করেছে।   কানাডার ইতিহাসে এযাবতকালের সবচেয়ে বেশি উচ্চাভিলাষী পরিকল্পনা এটি।  একমাত্র ১৯১৩ সালে কানাডাতে ৪ লাখ ১ হাজার ইমিগ্রেন্ট আনা হয়। । কানাডিয়ানদের স্বাস্থ্য সেবা সহ  ইনফরমেশন টেকনোলজি, ফুড সেক্টর, এগ্রোফুড এবং ফার্মিং সহ  অন্য সব ক্ষেত্রেই কভিড -১৯ এর ক্ষতি পুষিয়ে নিয়ে কানাডার অর্থনীতিকে চাঙ্গা করতে, নতুন জব সৃষ্টির জন্য বেশি বেশি সংখ্যায় ইমিগ্রান্ট আনা  ছাড়া কোনো উপায়ই নেই।

মহামারী পরবর্তী কানাডার চলমান ইমিগ্র্যাশন প্রক্রিয়াকে আরো বেশি ফলপ্রসূ করার জন্য নতুন ইমিগ্রান্টদের চাকরি পাওয়া এবং সেটেলমেন্ট এর জন্য বিশেষ সহযোগিতা করতে হবে- ইমিগ্র্যাশন এন্ড রেফিউজি কাউন্সিল,সেটেলমেন্ট অর্গানাইজেশন, গবেষক, ব্যাবসায়ী প্রতিষ্ঠান, মিউনিসিপাল, প্রভিন্সিয়াল এবং ফেডারেল গভমেন্ট এসব ব্যাপারে আরো গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে। নারী, শিশু এবং রেফুজিদের জন্য আরো অনেক বেশি সুযোগ সুবিধা তৈরী হওয়া দরকার।  বিজনেস ইমিগ্র্যাশন ঢেলে সাজানো দরকার- দুই হাজার চৌদ্দ সালের পরে কোনো আধুনিক বিসনেস ইমিগ্র্যাশন  প্রক্রিয়া না থাকায় এবং কুইবেক ইনভেস্টর প্রক্রিয়া বন্ধ থাকায় , ফেডারেল স্টার্ট আপ ভিসা বা বিজনেস এন্ট্রেপ্রেনিউর ভিসার দীর্ঘসূত্রিতার কারণে কানাডা অনেক বিজনেস ইমিগ্রান্টদের হারাচ্ছে। এক্সপ্রেস এন্ট্রি তে পিএনপির মতো ইন্ডাস্ট্রি এন্ড অকুপেশন স্পেসিফিক ড্র হতে পারে।  স্পাউসল এন্ড ফ্যামিলি স্পনসরশিপ প্রক্রিয়াকে ত্বরান্নিত করা প্রয়োজন, ইন্টারন্যাশনাল স্টুডেন্ট এবং টেম্পোরারি ফরেন ওয়ার্কারদের ভিসা প্রক্রিয়া ত্বরান্বিত করা   জরুরী।  বর্তমান পরিস্থিতিতে আফগান রেফুজিদের নিয়ে আসার এবং পুনর্বাসনের সুনির্দিষ্ট পরিকল্পনা প্রণয়ন করা প্রয়োজন। 

কানাডার ইমিগ্র্যাশন সিস্টেম প্রতিনিয়ত আধুনিক এবং পরিবর্তিত হচ্ছে। এক্সপ্রেস এন্ট্রি এবং মাল্টিইয়ার  ইমিগ্র্যাশন প্রক্রিয়া চালু করে কানাডা বেশি সংখ্যক ইমিগ্রান্ট আনার সদিচ্ছারই প্রমাণ রেখেছে। বিশ্ব মহামারীর এই সংকটকালে কানাডা যেভাবে তাদের ইমিগ্রেশন প্রক্রিয়া চালু রেখেছে তা নিঃসন্দেহে প্রশংসার দাবিদার। 

লেখক:মাহমুদা নাসরিন, প্রিন্সিপাল কনসালট্যান্ট, ক্যানবাংলা ইমিগ্রেশন সার্ভিসেস , nasrinmahmuda8@gmail.com


Designed & Developed by Tiger Cage Technology
উপরে যান