কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন  কি এবং কিভাবে কাজ করে

Fri, Jan 1, 2021 9:59 PM

কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন  কি এবং কিভাবে কাজ করে

খোরশেদ খান: এই ভ্যাকসিন এর বৈজ্ঞানিক আবিষ্কারকে অনেকেই লম্বা টানেলের অন্য প্রান্তে আলোক রশ্মির  উঁকি দেয়াকে তুলনা করে থাকে। আবিষ্কারের প্রয়োগ যখন কানাডা সহ উন্নত বিশ্বে শুরু হয়েছে তখন কেউ কেউ এর প্রয়োগ নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেছে। তাই এ-ই বিষয়ে কিছু লিখার প্রয়োজনীয়তা অনুভব করছি। লেখাটা সবার কাছে সহজবোধ্য করার জন্য কিছু কিছু শব্দ চয়ন ইংরেজিতে করেছি।

কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন এর কার্যকরিতা জানার আগে আমাদের শরীরের  ইমিউন সিস্টেম সম্পর্কে কিছুটা ধারণা থাকা প্রয়োজন।এটা হলো শরীরে অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ, কোষ ও সেলের মধ্যে  নেটওয়ার্কিং সিস্টেম, যারা সম্মিলিত ভাবে রোগ নির্ণয় ও প্রতিরোধ করে।

° শরীরে কোন জীবানু (ভাইরাস, ব্যাক্টেরিয়া)  প্রবেশ করলে তখন ইমিউন সিস্টেম বুঝতে পারে যে, কোন না কোন বহিঃশত্রুর আগমন ঘটেছে। এই অনুপ্রবেশ কারীকে এন্টিজেন  বলে।

° তখনই শরীরে স্পেশাল প্রোটিন তৈরি হয় যা এন্টিবডি  নামে পরিচিত এবং বহিঃশত্রুর উপর ঝাপিয়ে পড়ে ও ধ্বংস করে। যদি ইমিউনিটি সিস্টেম  দুর্বল থাকে তবে জীবাণু গুলো শরীরে রোগ তৈরী করে।

° ইমিউন সিস্টেম যখন কোন রোগ প্রতিরোধ করে বা জীবাণু ধ্বংস করে তখন সেই গুলো সম্পর্কে একটা ধারণা অর্জন করে যাহা ভবিষ্যতে সে কাজে লাগাতে পারে।

একটু গভীরে যাওয়া যাক, শ্বেতরক্ত কনিকা (white blood cells) হলো  ইমিউন সেল  যারা রোগ প্রতিরোধ করেঃ

> Macrophage: যারা জীবিত, মৃত বা তাদের অংশবিশেষ গিলে নেয়।

> B- Lymphocyte গুলো ডিফেন্স এর কাজ করে। এগুলো এন্টিবডি তৈরি করে এবং  antigen কে আক্রমণ করে।

> L- Lymphocyte; এগুলো কে memory cell বলা হয়। অতীতের অর্জিত কলা কৌশল স্বরন করে  শত্রুর বিরুদ্ধে আক্রমণ করে।

  এই বিষয় টা আরও  পরিষ্কার করার জন্য সামরিক মহড়া নিয়ে একটু আলোকপাত করা যাক। আমরা সবাই শীত কালিন সামরিক মহড়া সম্পর্কে জানি। এতে কিছু  ডামি Tank বা সামরিক যানকে টার্গেট করা হয়, যেগুলো বিভিন্ন কলা কৌশলে ধ্বংস করা হয়। এই অর্জিত কলা কৌশলই  আসল যুদ্ধে প্রয়োগ করা হয়।

ভ্যাকসিন  এর মাধ্যমে শরীরে কিছু ডামি জীবাণু ইনজেক্ট করা হয়, যেগুলো মৃত বা দুর্বল বা জীবাণুর কোন উপাদান। তখনই শরীরের ইমিউন সিস্টেম  স্পেশাল প্রোটিন তৈরি করে যাহা এন্টিবডি বা মেমোরি সেল হিসেবে পরিচিত। এই সামরিক মহড়ায় সেলগুলো আক্রমণের কৌশল অর্জন করে।

বর্তমানে তিন ধরনের কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন  বাজারে আসছে।

১) mRNA vaccine :

Pfizer BioNtech এর আবিষ্কার। COVID Virus এর উপাদান দিয়ে তৈরি। শরীরে প্রয়োগের ফলে ডামি প্রোটিন তৈরি হয়, তার প্রতিক্রিয়ায় শরীরের ইমিউন সিস্টেম এন্টিবডি তৈরি করে এবং আক্রমন করে ভবিষ্যতের জন্য কলা কৌশল অর্জন করে।

যখনি শরীরে সত্যিকার COVID-19 virus প্রবেশ করবে তখনই  Immune system তার Macrophage,  Antibody  ও Memory cells গুলো উদ্দীপ্ত করে এবং অতীতের অর্জিত কলা কৌশল প্রয়োগ করে অনুপ্রবেশ কারী এন্টিজেনকে ধ্বংস করে।

এই সময় শরীরে কিছুটা জ্বরজ্বর ভাব অনুভব হতে পারে।

২) Protein Substitute Vaccine, যাহা mRNA technique use  করে :

Moderna এর আবিষ্কার, এতে COVD Virus এর উপাদান (প্রোটিন) তৈরি হয় , যাহা আগের মতনই ইমিউন সিস্টেমে, এন্টিবডি তৈরি করে কৌশল অর্জন করতে সহায়তা করে ।

৩) Vactor Virus: এতে দুর্বল জীবিত ভাইরাস ব্যবহার করা হয় যা কোভিডের পরিবর্তে তার  জেনেটিক উপাদান দিয়ে তৈরি।

অন্যান্য Vaccine এর মত এর কার্যকালের স্থায়িত্ব কাল কত দিন বজায় থাকবে তা এখনো নির্ণয় করা যায়নি। তবে এর মাধ্যমে যে শরীরের ইমিউন সিস্টেম এন্টিবডি তৈরিতে সক্ষম হবে এবং কার্যকর ভূমিকা পালন করবে তাতে কোনো সন্দেহের অবকাশ নেই।

লেখক: খোরশেদ খান, সিনিয়র কেমিস্ট, আলফা হেলথ কেয়ার, টরন্টো।


সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে
Designed & Developed by Tiger Cage Technology
উপরে যান