রাঙুনিয়ার বৌদ্ধ বিহারে হামলা: প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ চেয়ে কানাডায় মানববন্ধন

Sun, Aug 9, 2020 7:35 PM

রাঙুনিয়ার বৌদ্ধ বিহারে হামলা: প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ চেয়ে  কানাডায় মানববন্ধন

নতুনদেশ ডটকম : চট্টগ্রামের রাঙুনিয়ায় বৌদ্ধ ভিক্ষু শরণংকর থেরোর বিহার স্থাপনা ধ্বংসের প্রতিবাদে গত শনিবার টরন্টোঢ মানববন্ধন  এবং  প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বাংলাদেশ বুড্ডিষ্ট এসোসিয়েশন অফ কানাডা, টরন্টোর উদ্যোগে আয়োজিত এই  মানববন্ধন এবং প্রতিবাদ সমাবেশে  ফলাহারিয়া জ্ঞানশরণ মহারণ্য বৌদ্ধ কমপ্লেক্স এবং এর প্রতিষ্ঠাতা ভদন্ত শরণংকর থেরো মহোদয়কে ঘিরে সৃষ্ট জটিলতা নিরসনে বাংলাদেশের  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হস্তক্ষেপ কামনা করা হয়।   

সংগঠনের প্রেসিডেন্ট নিখিল লাভলু বড়ুয়ার সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন যথাক্রমে প্রকৌশলী অশোকাঙ্কুর বড়ুয়া, অসিত বড়ুয়া, জীবক বড়ুয়া,  এবং নিখিল লাভলু বড়ুয়া ।

বক্তারা বৌদ্ধ বিহারের স্থাপনা ভাংচুরের তীব্র নিন্দা জানান । পাশাপাশি ভূয়া ফেইসবুক আইডি বানিয়ে শরণংকর ভিক্ষুকে মিথ্যা মামলা জড়ানোর প্রতিবাদ করেন এবং সুষ্ঠু  তদন্ত করে দোষী ব্যক্তিদের শাস্তি দাবী করেন ।

বক্তারা বলেন,বৌদ্ধরা সৌহার্দ্যপূর্ন সহাবস্থানে বিশ্বাসী।আবহমানকাল ধরে বাংলাদেশে বৌদ্ধরা সব ধর্মের অনুসারীদের সাথে শান্তিপূর্ণ ভাবে বসবাস করে আসছে । 

বক্তারা বলেন শরণংকর ভান্তের পরিকল্পনা অনুসারে বৌদ্ধ বিহার কমপ্লেক্স প্রতিষ্ঠিত হলে রাংগুনিয়াবাসীসহ বাংলাদেশ সরকার উপকৃত হবেন। পর্যটকদের সমাগম হবে দেশ বিদেশ থেকে, যাতে করে স্থানীয় লোক জনের কর্মসংস্থান হবে দেশেরও সুনাম হবে।যেমনটি দেশের বিভিন্ন জায়গার  বৌদ্ধ স্থাপনাগুলোর মধ্যে-কক্সবাজার বেড়াতে গেলে জাতি ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে বৌদ্ধ প্যাগোডা দেখতে যান ,বান্দরবান গেলে স্বর্ণ জাদী,রাঙামাটি গেলে বনভান্তের বৌদ্ধ প্যাগোডা দেখতে যান। তেমনি কাপ্তাই চন্দ্রঘোনা বেড়ানোর সাথে ফলাহারিয়া জ্ঞানশরণ কমপ্লেক্স নি:সন্দেহে পর্যটনের একটা অংশ হবে !

বক্তারা বলেন,বাংলাদেশ -এ বৌদ্ধরা বহিরাগত নয় ! বাংলাদেশের মাটি খনন করলেই বৌদ্ধ সভ্যতার নিদর্শন পাওয়া যায় যাতে প্রমানিত হয় এটা একদা বৌদ্ধদের দেশ ছিলো।তাই বৌদ্ধরা বাংলাদেশের পূর্বপুরুষ।বগুড়ার মহাস্থানগড়, কুমিল্লার ময়নামতি, মুন্সিগন্জের বজ্রযোগিনী গ্রামে অতীশ দীপংকরের বাস্তুভিটা, রামুর হাজার বছরের পুরনো বৌদ্ধ প্যাগোডা কালের স্বাক্ষী। 


সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে
Designed & Developed by Tiger Cage Technology
উপরে যান