কোভিড ১৯: সময় গেলে সাধন হবেনা

Thu, Mar 19, 2020 5:51 PM

কোভিড ১৯: সময় গেলে সাধন হবেনা

ড. মাহতাব শাওন :মানচিত্রের একেবারে তলদেশে অবস্থিত বলে কিংবা ভৌগলিক বিচারে প্রান্তিক দেশ হওয়ায় আর পর্যটকদের কাছে খুব অভীষ্ট ভ্রমন স্থান না হওয়ার কারনে করোনা প্রতিরোধে য়ূরোপের দেশগুলোর তুলনায় বাংলাদেশের কম্পারেটিভ্ এডভ্যান্টেজ বা তুলনামূলক সুবিধা ছিল। সঠিক সময়ে বন্দর গুলোকে বন্ধ করে দিয়ে অথবা নির্দিষ্ট কিছু দেশ থেকে আসা যাত্রীদের বাধ্যতামূলক কোয়ারান্টাইনের ব্যাবস্থা নিয়ে এই সুবিধার সুফল অর্জন করা যেতো। কিন্তু, বিবিধ জটিলতায় এই তুলনামূলক সুবিধাটি বাংলাদেশ আসলে কাজে লাগাতে পারেনি।

অবশ্য মানচিত্রের উপরের দিককার দেশ হিসেবে কিংবা আটলান্টিকের ওপারের দেশ হিসেবে আমেরিকা কিংবা কানাডার মতো দেশটিও যে এই কম্পারেটিভ্ এডভ্যান্টেজটি খুব কাজে লাগাতে পেরেছে -একথাও খুব জোর গলায় বলা যাবেনা।

 

কিন্তু আমেরিকা কিংবা কানাডা অভ্যন্তরীণ সংক্রমণ ঠেকাতে পদক্ষেপ নিয়েছে দ্রুত। কিভাবে? জ্ঞাত ও অজ্ঞাত আক্রান্তরা যেনো অন্যদের সহজে সংক্রামিত করতে না পারে সেটি নিশ্চিত করতে দেশ জুডে এক ধরনের ‘সোশ্যাল ডিস্টেন্স’ বা ‘হোম কোয়ারান্টাইন’ এর ব্যাবস্থা করেছে ‘ষ্টেট অব্ এমার্জ্ন্সী’ বা ‘জরুরী অবস্থা’ ঘোষণা করে।

 

রাষ্ট্রগুলো কোভিড-১৯ এর পারমানবিক গতিতে সংক্রমনের ক্ষমতা বিবেচনা করে দেখেছে, স্বাভাবিক অর্থনৈতিক কর্মকান্ড বন্ধ করে দিলে রাষ্ট্র যে পরিমাণ আর্থিক ক্ষতির মুখোমুখি হবে তার চেয়ে ঢের বেশি আর্থ-সামাজিক ক্ষতি হবে যদি নভেল করোনার সংক্রমণ বন্ধের দ্রুত উদ্যোগ না নেয়া হয়।

আসলে চীন, দক্ষিণ কোরিয়া, ইরান কিংবা সমগ্র য়ূরোপ থেকে প্রাপ্ত পরিসংখ্যান থেকে একথা সহজেই অনুমেয় যে কোভিড-১৯ এর সংক্রমণ প্রক্রিয়া শুরুর যতো প্রাথমিক পর্যায়ে প্রতিরোধের কার্যকর উদ্যোগ নেয়া হবে যে কোন রাষ্ট্রের জন্য এটি ততো বেশী মংগল বয়ে আনবে।বাংলাদেশের জন্যও একই কথা প্রযোজ্য। রাষ্ট্রের জনস্বাস্হ্য সংক্রান্ত হুমকী যখন অবিসংবাদিত এবং জরুরী তখন সংকট মোকাবেলায় বাংলাদেশ সরকারও হয়তো সারা দেশে ‘জরুরী অবস্থা’ঘোষণা করবেন । বিষয়টি স্বাভাবিক। কিন্তু এ প্রসংগে এটিও স্মর্তব্য যে , সময় গেলে তো সাধন হবেনা! সে হিসেবে, সরকারের পক্ষে সিদ্ধান্ত নেবার উপযুক্ত সময়টি দ্রুতই বয়ে যাচ্ছে।

 লেখক: ড. মাহতাব শাওন [শিক্ষক, গবেষক ও আইনজীবি (বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্ট)]

ইমেইল: shawn.mahatab@gmail.com


Designed & Developed by Tiger Cage Technology
উপরে যান